জীবনের সমীকরণ

তোমরা যারা অবহেলা করে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিলে
তারাই এখন বেশি বেশি খোঁজ নাও
কেনো জানো?
ব্র্যান্ড নিউ কোন গাড়িটা বদলেছি এখন !
টেসলা, মার্সিডিস বেঞ্জ, বিএমডব্লিউ নাকি অডি !
অথচ তোমাদের মনে আছে?
দুবেলা খাবার জোটে নি ঘরে।
তোমাদের ঘরে হাজারওবার পেয়েছি সর্ষে ইলিশের গন্ধ
বিশেষ বিশেষ দিনে বিরিয়ানির গন্ধও আসতো !
কোনোদিন ঈর্ষা হয় নি জানো?
শুধু প্রার্থনা করতাম তোমাদের জন্য
তোমরা যেনো বেশি বেশি পাও, বেশি বেশি খাও।
সন্ধ্যা হলেই আমার ঘরজুড়ে নেমে আসতো অন্ধকার।
কয়েক ফোঁটা কেরোসিনে আর কত সময়ই বা জ্বলে !
বছর বছর ধরে ল্যাম্পপোস্টের আলোয় পড়েছি
আর হিসাবের খাতায় মেলাতাম জীবনের অসংখ্য সব সমীকরণ
না পাওয়ার বেদনা ভর করে নি কখনও
বিধাতার লিখন হিসাবেই মেনে নিতাম সব
সেই সব দিনগুলি এখন স্মৃতি আর ডায়েরীর পাতায়
তবে আজ এই ক্ষণে যা মনে হয়
বেদনাগুলো যত সহজে লালন করা যায়
সুখগুলো কি ততটা ধরে রাখা যায়?
সুখের পায়রাগুলো নতুন সুখের খোঁজে ঘুরে বেড়ায়
দিক থেকে দিগন্তরে পালিয়ে বেড়ায় ভেজা মেঘের মতো
কি অদ্ভূত আমাদের জীবন !